• ৩রা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১৯শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৪শে জিলহজ, ১৪৪২ হিজরি

নিজেকে নির্দোষ দাবী করলেন নাসির

প্রিয় সিলেট ডেস্ক
প্রকাশিত জুন ১৪, ২০২১
নিজেকে নির্দোষ দাবী করলেন নাসির

গত বুধবার রাতে ঢাকা বোট ক্লাবে ঘটে যাওয়া ঘটনার জন্য চিত্রনায়িকা পরীমনিকেই দোষারোপ করেছেন ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা মামলার প্রধান আসামি নাসির উদ্দিন মাহমুদ। গ্রেপ্তারের আগে কয়েকটি গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেছেন, তাদের কাউন্টারে দামি মদ ছিল। পরীমনি ও তার সঙ্গীরা সেটি জোর করে নেয়ার চেষ্টা করেছিল। আর তারা দিতে চাননি বলে তাকে গালাগাল করা হয়।

এরআগে রোববার (১৩ জুন) রাতে পরীমনি তার ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে অভিযোগ করেন, তাকে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টা করা হয়েছে। তিনি আইনের আশ্রয়ও নিতে পারছেন না।
পরে ওই রাতে গণমাধ্যমকর্মীরা তার বাসায় গেলে তিনি জানান, গত বুধবার রাতে একটি কাজ নিয়ে আলোচনা করতে তিনি দুই সঙ্গীসহ আশুলিয়ার বিরুলিয়ার ঢাকা বোট ক্লাবে যান।সেখানে এই ক্লাবের সাবেক সভাপতি নাসির উদ্দিন মাহমুদ তাকে জোর করে মুখে মদের বোতল ঠেলে দিয়েছেন। তাকে চড় থাপ্পড় দিয়েছেন। তার সঙ্গী জিমিকে মারধর করেছেন। এরপর সেখান থেকে এসে বনানী থানায় গিয়ে লিখিত অভিযোগ দিলেও পুলিশ তা নেয়নি।

গণমাধ্যমে এই সংবাদ আসার পর তোলপাড় হয়ে যায়। সোমবার (১৪ জুন) সকালে পরীমনির বাসার সামনে মোতায়েন করা হয় পুলিশ। তার মামলা গ্রহণ করা হয় সাভার থানায়। আর সে মামলায় গ্রেপ্তার করা হয় নাসির উদ্দিনসহ পাঁচজনকে।

গ্রেপ্তারের আগে নাসির সেই রাতের ঘটনার অন্য ভাবে বর্ণনা দেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের কাউন্টারে খুব দামি ড্রিঙ্কস ছিল, দামি বড় বড় ড্রিঙ্কস ছিল সেটা তারা জোর করে নেয়ার চেষ্টা করেছিল। তারা তো নিতে পারে নাই, তারা তো ক্লাবের মেম্বার না। আমি জাস্ট তাদেরকে বাধা দিছি যে নেয়া যাবে না। নিতে হলে তোমাদের …. দিতে হবে এটা বিক্রি যোগ্য না। বাই দিস টাইম আমাদের বার ক্লোসড। এটা দেয়া যাবে না। এর পরই সে (পরীমনি) উত্তেজিত হয়ে যায়। উত্তেজিত হয়ে একটার পর গ্লাস প্লেট… সে আমাকে গালিগালাজ শুরু করে। আমাদের স্টাফরা তাকে থামানোর চেষ্টা করে।’

নাসির উদ্দিনের দাবি, তিনি পরীমনিকে আগে থেকে চিনতেন না। আর ঘটনার সময় তিনি তাকে থামাতে চেষ্টা করেন। এ সময় তিনি মারধরের স্বীকার হন।

তিনি বলেন, ‘তার (পরীমনির) সঙ্গে যে একটা ছেলে ছিল সে আমাকে চড়-থাপ্পড় দেয় ও গ্লাস ছুড়ে মারে। সেটি আমার গায়ে লাগে। এই অবস্থায় আমাদের সিকিউরিটিদের আমি নির্দেশ দেই, তখন সিকিউরিটিরা তাকে উঠিয়ে নিয়ে যায়। যখন সিকিউরিটিরা নিয়ে যায় বাই দিস টাইম সে অনেক ড্রিঙ্ক করে ফেলেছে এবং এটা আমাদের সিসি ক্যামেরায় দেখবেন যে, সে ড্রিঙ্ক করা অবস্থায় গাড়িতে উঠতে পারছে।’

এই ঘটনাটি ক্লাবকে জানানো হয়েছে বলেও দাবি করেন নাসির। বলেন, ‘ক্লাবের নিয়ম অনুযায়ী ইট হ্যাজ বিন রিপোর্টেড। আমাদের যারা স্টাফ আছে তারা লিখিতভাবে সমস্ত রিপোর্ট দিয়েছে। সেই রিপোর্টে পরিষ্কার কিন্তু আমার সঙ্গে তার কিছুই হয়নি।’

বোট ক্লাব অবশ্য এই ঘটনায় নাসির উদ্দিনকে বরখাস্ত করেছে। ক্লাবের নির্বাহী সদস্য বখতিয়ার আহমেদ খান বলেন, ‘একটা দুঃখজনক ঘটনা ঘটেছে, আমরা সিরিয়াস অ্যাকশন নেব। এরই মধ্যে নাসির উদ্দিনের সদস্যপদ সাসপেন্ড (সাময়িকভাবে বহিষ্কার) করা হয়েছে। সে আর ক্লাব ইউজ করতে পারবে না। ইনকোয়ারি রিপোর্টের পর যদি দেখা যায় অভিযোগ প্রমাণিত, তাহলে তার সদস্যপদ পুরোপুরি ক্যানসেল হয়ে যাবে।’

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রতিনিধি :: সিলেটের জৈন্তাপুরে ট্রাকচাপায় নিহত পাঁচজনের মধ্যে চারজন একই পরিবারের। আজ রোববার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে সিলেট-তামাবিল সড়কের জৈন্তাপুর ফেরিঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত পাঁচজন হলেন জৈন্তাপুরের নিজপাট রুপচেন গ্রামের জামাল উদ্দিনের স্ত্রী সাবিয়া বেগম (৪০), সাবিয়ার মেয়ে সাকিয়া বেগম (৪), তিন মাস বয়সী ছেলে তাহমিদ হোসেন, ননদ হাবিবুন নেছা (৩৮) ও একই গ্রামের সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক হোসেন আহমদ (৩৫)। এ ঘটনায় আহত হয়ে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নিহত সাবিয়ার দেবর জাকারিয়া আহমদ (৪২) ও তাঁর স্ত্রী হাসিনা বেগম (৩০)। পুলিশ ও নিহত ব্যক্তিদের পরিবারসূত্র জানায়, যাত্রীবাহী একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে মহাসড়কে উঠলে সিলেট থেকে তামাবিলগামী একটি ট্রাক সেটিকে ধাক্কা দেয়। এতে সিএনজিচালিত অটোরিকশার কয়েকজন যাত্রী ছিটকে পড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হন। এ সময় ঘটনাস্থলে চারজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়। আহত জাকারিয়া আহমদ বলেন, আজ সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে স্বজনের বাড়িতে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর বলেন, মরদেহগুলো সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অটোরিকশাটি থানায় নেওয়া হয়েছে।