• ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৬ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতে সিসিকের জরুরি সভা

প্রিয় সিলেট ডেস্ক
প্রকাশিত আগস্ট ৩, ২০২১
ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতে সিসিকের জরুরি সভা

সিলেটে চলমান করোনা পরিস্থিতি  ও চিকিৎসার ব্যবস্থা নিয়ে জরুরী সভা ডেকেছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের (সিসিক) মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) দুপুর ১২টায় নগরভবনের সম্মেলন কক্ষে এই সভা শুরু হয়।

সিলেটে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি এখন ভয়ানক। লাফিয়ে বাড়ছে মৃত্যু ও সংক্রমণের সংখ্যা। কিন্তু চিকিৎসার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নেই সিলেটে। রয়েছে অক্সিজেন সংকটও।

এই পরিস্থিতিতে জরুরি সভা ডাকেন মেয়র আরিফে। সভায় ভিডিও কলে যুক্ত ছিলেন সিলেট-১ আসনের সাংসদ ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।

সভা শেষে বেলা ২টার দিকে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। তিনি বলেন, আজকের সভায় সিলেটের সার্বিক করোনা পরিস্থিতি পররাষ্ট্রমন্ত্রী মহোদয়ের সামনে তুলে ধরা হয়েছে। সিলেটের ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতি কাটিয়ে ঠার লক্ষ্যে সভায় উপস্থিত সবার সম্মতিক্রমে কয়েকটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে পর্যাপ্ত অক্সিজেন সরবরাহের বিষয়ে। সিলেটে যেসব কোম্পানি অক্সিজেন সরবরাহ করে তাদেরকে সাপ্লাইয়ের পরিমাণ বাড়াতে বলা হয়েছে। এ নিয়ে আজ ঢাকায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিজে অক্সিজেন কোম্পানিগুলোর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এছাড়াও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আজ স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ে বৈঠক করে সিলেট এম এ জি ওসমনাী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের অক্সিজেন সঞ্চালন প্লান্টের সক্ষমতা বাড়ানোর বিষয়ে আলোচনা করে দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন।

মেয়র বলেন, সভায় জেলা প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে- যাতে জনসাধারণের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করা হয়। এ ক্ষেত্রে যতটা কঠোর হওয়া প্রয়োজন ততটা কঠোর হতে হবে প্রশাসনকে। এছাড়া সিসিকের সকল জনপ্রতিনিধিদের নেতৃত্বে নগরীর প্রতি ওয়ার্ডে মানুষকে মাস্ক ব্যবহারে উদ্বুদ্ধ করতে প্রচারণা চালানো হবে। আগামীকাল (বুধবার) থেকেই এ কার্যক্রম শুরু করা হবে।

মেয়র আরিফ বলেন, সিলেট জেলার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতেও করোনা রোগীদের চিকিৎসাসেবার পরিধি বাড়ানোর বিষয়ে সভায় আলোচনা হয়েছে। রোগীরা যদি উপজেলা পর্যায়ে সেবা পেয়ে যান তবে ওসমানী মেডিকেল ও শামসুদ্দিন হাসপাতালসহ নগরীর হাসপাতালগুলোতে রোগীর চাপ অনেকটা কমে যাবে।

নগরীর প্রাইভেট হাসপাতালগুলোতে করোনা রোগীদের সেবা দিয়ে মানাবিক আকারে বিল আদায়ের জন্য সভায় কর্তৃপক্ষের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়।

সভায় সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী, বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশনের (বিএমএ) মহাসচিব ডা. এহতেশামুল হক দুলাল, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক মাহি উদ্দিন আহমদ সেলিমসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, স্বাস্থ্য বিভাগ, জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, বেসরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রতিনিধি :: সিলেটের জৈন্তাপুরে ট্রাকচাপায় নিহত পাঁচজনের মধ্যে চারজন একই পরিবারের। আজ রোববার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে সিলেট-তামাবিল সড়কের জৈন্তাপুর ফেরিঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত পাঁচজন হলেন জৈন্তাপুরের নিজপাট রুপচেন গ্রামের জামাল উদ্দিনের স্ত্রী সাবিয়া বেগম (৪০), সাবিয়ার মেয়ে সাকিয়া বেগম (৪), তিন মাস বয়সী ছেলে তাহমিদ হোসেন, ননদ হাবিবুন নেছা (৩৮) ও একই গ্রামের সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক হোসেন আহমদ (৩৫)। এ ঘটনায় আহত হয়ে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নিহত সাবিয়ার দেবর জাকারিয়া আহমদ (৪২) ও তাঁর স্ত্রী হাসিনা বেগম (৩০)। পুলিশ ও নিহত ব্যক্তিদের পরিবারসূত্র জানায়, যাত্রীবাহী একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে মহাসড়কে উঠলে সিলেট থেকে তামাবিলগামী একটি ট্রাক সেটিকে ধাক্কা দেয়। এতে সিএনজিচালিত অটোরিকশার কয়েকজন যাত্রী ছিটকে পড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হন। এ সময় ঘটনাস্থলে চারজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়। আহত জাকারিয়া আহমদ বলেন, আজ সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে স্বজনের বাড়িতে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর বলেন, মরদেহগুলো সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অটোরিকশাটি থানায় নেওয়া হয়েছে।