• ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৬ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৪ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

জগন্নাথপুরে একই দিনে স্বামী স্ত্রীর মৃত্যু

প্রিয় সিলেট ডেস্ক
প্রকাশিত আগস্ট ৪, ২০২১
জগন্নাথপুরে একই দিনে স্বামী স্ত্রীর মৃত্যু

সুনামগঞ্জে জগন্নাথপুর উপজেলায় করোনার উপসর্গ নিয়ে একই দিনে স্বামী স্ত্রীর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার উপজেলার মিরপুর ইউনিয়নের হাসান ফাতেমাপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্বামীর মৃত্যুর চার ঘন্টা পর মারা গেছেন তার স্ত্রী।

মারা যাওয়া দুইজন হলেন ফাতেমাপুর গ্রামের ছামির আলী (৭০) ও তার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৬৫)। তাদের পরিবারের অন্য সদস্যদের মধ্যেও করোনার উপসর্গ রয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

এলাকাবাসী ও পরিবারের লোকজন জানান, ছামির আলী ও তার পরিবারে সদস্যরা বেশ কিছুদিন ধরে করোনা উপসর্গে ভুগছিলেন। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনা পরীক্ষা না করে স্থানীয় ফার্মেসি থেকে ওষুধ এনে সেবন করছিলেন তারা। উপসর্গের বিষয়টি গোপন রেখে সম্প্রতি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এসে স্বামী-স্ত্রী দুজনই টিকা নেন।

গতকাল সোমবার বেলা ১টায় মারা যান ছামির আলী। বিকেল সাড়ে ৫টায় তার জানাজা নামাজের সময় নির্ধারণ করা হয়। জানাজার প্রস্তুতি চলাকালে বিকেল ৫টায় মারা যান স্ত্রী আনোয়ারা বেগম (৬৫)। পরে পারিবারিক কবরস্থানে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় তাদের দাফন সম্পন্ন হয়।

মারা যাওয়া দম্পতির চার ছেলে, দুই মেয়ে। তাদের মধ্যে তিন ছেলে যুক্তরাজ্যে বসবাস করছেন। বাড়িতে আরেক ছেলে রাকিব উদ্দিন, দুই মেয়ে ও রাকিবের স্ত্রী থাকেন।

রাকিব বলেন, পরিবারের সবাই জ্বর, সর্দি–কাশিতে ভুগছেন। তারা বিষয়টি সাধারণ জ্বর–সর্দি হিসেবে দেখছেন, তাই করোনা পরীক্ষা করাননি। বাবার মৃত্যুর চার ঘণ্টা পর মায়ের মৃত্যু তারা মেনে নিতে পারছেন না।

জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মধুসূদন ধর বলেন, তারা করোনা পরীক্ষা করেননি। করোনা উপসর্গ থাকতে পারে। পরিবারের অন্য সদস্যদের বিষয়ে খোঁজ নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হবে। তাদের টিকা গ্রহণের বিষয়টি তিনি নিশ্চিত করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রতিনিধি :: সিলেটের জৈন্তাপুরে ট্রাকচাপায় নিহত পাঁচজনের মধ্যে চারজন একই পরিবারের। আজ রোববার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে সিলেট-তামাবিল সড়কের জৈন্তাপুর ফেরিঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত পাঁচজন হলেন জৈন্তাপুরের নিজপাট রুপচেন গ্রামের জামাল উদ্দিনের স্ত্রী সাবিয়া বেগম (৪০), সাবিয়ার মেয়ে সাকিয়া বেগম (৪), তিন মাস বয়সী ছেলে তাহমিদ হোসেন, ননদ হাবিবুন নেছা (৩৮) ও একই গ্রামের সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক হোসেন আহমদ (৩৫)। এ ঘটনায় আহত হয়ে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নিহত সাবিয়ার দেবর জাকারিয়া আহমদ (৪২) ও তাঁর স্ত্রী হাসিনা বেগম (৩০)। পুলিশ ও নিহত ব্যক্তিদের পরিবারসূত্র জানায়, যাত্রীবাহী একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে মহাসড়কে উঠলে সিলেট থেকে তামাবিলগামী একটি ট্রাক সেটিকে ধাক্কা দেয়। এতে সিএনজিচালিত অটোরিকশার কয়েকজন যাত্রী ছিটকে পড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হন। এ সময় ঘটনাস্থলে চারজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়। আহত জাকারিয়া আহমদ বলেন, আজ সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে স্বজনের বাড়িতে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর বলেন, মরদেহগুলো সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অটোরিকশাটি থানায় নেওয়া হয়েছে।