• ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৮ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ১৬ই সফর, ১৪৪৩ হিজরি

আফগানিস্তানে এক প্রাদেশিক রাজধানী দখল করলো তালেবান

প্রিয় সিলেট ডেস্ক
প্রকাশিত আগস্ট ৭, ২০২১
আফগানিস্তানে এক প্রাদেশিক রাজধানী দখল করলো তালেবান

আফগানিস্তানের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় নিমরোজ প্রদেশের রাজধানী জারাঞ্জ দখল করে নিয়েছে তালেবান।

শুক্রবার (৬ আগস্ট) বিকেলে অঞ্চলটি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে নিতে সক্ষম হয় সশস্ত্রগোষ্ঠীটি। এর মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ২০ বছর পর প্রথমবারের মতো কোনো প্রাদেশিক রাজধানীর দখল নিলো তারা।

খবর বিবিসি ও বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আফগানিস্তান থেকে মার্কিন ও ন্যাটোর সৈন্য প্রত্যাহারের পর এই প্রথম কোনো প্রাদেশিক রাজধানীর দখল নিলো তালেবানরা। তবে আফগান সরকারের পক্ষ থেকে বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করা হয়নি।

তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে নিমরোজ পুলিশের এক মুখপাত্র রয়টার্সকে বলেন, সেখানে সরকারি বাহিনীর কাছে প্রয়োজনীয় সংখ্যক সেনা ছিল না। এ কারণে তালেবানদের বিরুদ্ধে তাদের শক্ত প্রতিরোধ গড়া সম্ভব হয়নি। এই সুযোগে রাজধানী জারাঞ্জ দখল করতে সক্ষম হয়েছে তালেবান।

টুইটারে পোস্ট দিয়ে জারাঞ্জ বিজয়ের দাবি করেছে সশস্ত্রগোষ্ঠীটিও। তাদের এক কমান্ডার বলেন, এটা কেবল বিজয়ের শুরু। এখন দেখবেন দ্রুতই অন্যান্য প্রদেশগুলোর পতন আমাদের হাতে ঘটবে।

বিবিসি বলছে, ইরান সীমান্ত নিকটবর্তী আফগানিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য শহর জারাঞ্জ। অঞ্চলটি দখল করার জন্য কয়েকদিন ধরেই সরকারি বাহিনীর সঙ্গে অবিরাম লড়াই চালিয়ে আসছিল তালেবান। অবশেষে দখল নিতে সক্ষম হলো তারা।

অবশ্য দখল হারানোর বিষয়টি অস্বীকার করে আফগান সরকারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, তালেবানের বিরুদ্ধে তারা এখনো লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে।

এর বাহিরে হেলমান্দ ও জোজ্জন প্রদেশের রাজধানী দখলের কাছাকাছি চলে এসেছে তালেবান যোদ্ধারা।

জোজ্জন প্রদেশের ডেপুটি গভর্নর আবদুল কাদের মালিয়া জানিয়েছেন, প্রদেশের রাজধানী শেবারগানের উপকণ্ঠে ভয়ঙ্কর আক্রমণ চালিয়েছে তালেবানরা। আরেকজন প্রাদেশিক কাউন্সিল সদস্য জানিয়েছেন, জোজ্জনের ১০টি জেলার নয়টিই তালেবানের দখলে। এদিকে হেলমান্দ প্রদেশেও চলছে ব্যাপক লড়াই।

বেসামরিক সম্পত্তির ক্ষতি মানবিক সংকটকে আরও বাড়িয়ে তোলে কারণ রাজধানী লস্করগাহ নিয়ন্ত্রণের জন্য সপ্তাহব্যাপী যুদ্ধে দোকানগুলিতে আগুন লেগে যায়। জাতিসংঘ এই সপ্তাহে বলেছে, তারা শহরে আটকে থাকা হাজার হাজার মানুষের নিরাপত্তা নিয়ে গভীরভাবে উদ্বিগ্ন।

  •  
  •  
  •  
  •  

প্রতিনিধি :: সিলেটের জৈন্তাপুরে ট্রাকচাপায় নিহত পাঁচজনের মধ্যে চারজন একই পরিবারের। আজ রোববার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে সিলেট-তামাবিল সড়কের জৈন্তাপুর ফেরিঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত পাঁচজন হলেন জৈন্তাপুরের নিজপাট রুপচেন গ্রামের জামাল উদ্দিনের স্ত্রী সাবিয়া বেগম (৪০), সাবিয়ার মেয়ে সাকিয়া বেগম (৪), তিন মাস বয়সী ছেলে তাহমিদ হোসেন, ননদ হাবিবুন নেছা (৩৮) ও একই গ্রামের সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক হোসেন আহমদ (৩৫)। এ ঘটনায় আহত হয়ে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নিহত সাবিয়ার দেবর জাকারিয়া আহমদ (৪২) ও তাঁর স্ত্রী হাসিনা বেগম (৩০)। পুলিশ ও নিহত ব্যক্তিদের পরিবারসূত্র জানায়, যাত্রীবাহী একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে মহাসড়কে উঠলে সিলেট থেকে তামাবিলগামী একটি ট্রাক সেটিকে ধাক্কা দেয়। এতে সিএনজিচালিত অটোরিকশার কয়েকজন যাত্রী ছিটকে পড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হন। এ সময় ঘটনাস্থলে চারজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়। আহত জাকারিয়া আহমদ বলেন, আজ সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে স্বজনের বাড়িতে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর বলেন, মরদেহগুলো সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অটোরিকশাটি থানায় নেওয়া হয়েছে।