• ২৭শে জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ১৩ই মাঘ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ , ২৪শে জমাদিউস সানি, ১৪৪৩ হিজরি

দেড় বছর পর লাদাখ থেকে সেনা সরাল চীন-ভারত

প্রিয় সিলেট ডেস্ক
প্রকাশিত আগস্ট ৮, ২০২১
দেড় বছর পর লাদাখ থেকে সেনা সরাল চীন-ভারত
Spread the love

লাদাখ সীমান্ত থেকে সেনা সরিয়ে নিল চীন-ভারত। পূর্ব লাদাখের গোগরা এলাকায় দুদেশের মধ্যকার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর মোতায়েন করা সেনা প্রত্যাহার করে নিয়েছে দুই প্রতিবেশী দেশ।

চুক্তি অনুসারে সেখানকার অস্থায়ী অবকাঠামোও সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। শুক্রবার (৬ আগস্ট) ভারতীয় সেনাবাহিনীর বরাতে এ খবর দিয়েছে দ্য প্রিন্ট ও এনডিটিভি।

খবরে আরও বলা হয়, মুখোমুখি সংঘাতের ১৫ মাস পর লাদাখ সীমান্ত থেকে দুদেশের সেনারা তাদের নিজ নিজ স্থায়ী ঘাঁটিতে চলে গেছে। বুধ ও বৃহস্পতিবার সেনাসহ অবকাঠামো সরিয়ে নেওয়া হয়।

ফলে সীমান্তের পরিস্থিতি এখন পূর্ববর্তী অবস্থায় ফিরে এসেছে। ভারতীয় সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, চুক্তি অনুসারে দুপক্ষই পর্যায়ক্রমে অগ্রসর বাহিনীকে সরিয়ে নিয়েছে। সম্প্রতি দুই প্রতিবেশীর মধ্যে কয়েক দফা বৈঠকের পর এই বড় সফলতা এসেছে।

চুক্তিতে বলা হয়েছে, গগরা এলাকার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা কঠিনভাবে পর্যবেক্ষণ করা হবে। সেখানকার অবস্থানকে দুদেশই মর্যাদা দেবে, কোনো দেশ একতরফাভাবে তা পরিবর্তন করার চেষ্টা করবে না।

ছয়টি সংঘাতপ্রবণ অঞ্চলের চারটি থেকে সেনা প্রত্যাহার করার সিদ্ধান্ত কার্যকর করা হয়েছে। কিন্তু ডেপসাং ও হট স্প্রিয়ের অচলাবস্থা অব্যাহত থাকবে। ভারতীয় সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, অধিকতর স্পর্শকাতর এলাকার সংকটের সমাধান করা হয়েছে।

আলোচনা এগিয়ে নিতে দুপক্ষই অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছে। ওয়েস্টার্ন সেক্টরে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার বাকি সমস্যারও সুরাহা করা হবে। এর আগে ভারতীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, পশ্চিমাঞ্চলীয় লাদাখ নিয়ে চীন-ভারতের সাম্প্রতিক সামরিক আলোচনা গঠনমূলক হয়েছে। বাকি অমীমাংসিত বিষয়গুলোরও সমাধান বের করা হবে দ্রুত গতিতে।

চীন ও ভারতের মধ্যকার বর্তমান অচলাবস্থার শুরু হয়েছিল গত বছরের ৫ মে। তখন প্যানগং এলাকায় রক্তক্ষয়ী সহিংসতায় জড়িয়ে পড়ে দুদেশ। এ সময়ে চীনারা ভারতীয় সীমান্তে ঢুকে পড়লে সংঘাতে লেগে যায়। যাতে ২০ ভারতীয় ও কয়েকজন চীনা সেনা নিহত হয়েছেন।

এরপর সীমান্তে সেনা বাড়াতে থাকে দুদেশ। মোতায়েন করা হয়েছে ভারী অস্ত্র। বর্তমানে সীমান্তের স্পর্শকাতর সেক্টরগুলোতে ৫০ থেকে ৬০ হাজার সেনা মোতায়েন রয়েছে চীন-ভারতের।

প্রতিনিধি :: সিলেটের জৈন্তাপুরে ট্রাকচাপায় নিহত পাঁচজনের মধ্যে চারজন একই পরিবারের। আজ রোববার সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে সিলেট-তামাবিল সড়কের জৈন্তাপুর ফেরিঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত পাঁচজন হলেন জৈন্তাপুরের নিজপাট রুপচেন গ্রামের জামাল উদ্দিনের স্ত্রী সাবিয়া বেগম (৪০), সাবিয়ার মেয়ে সাকিয়া বেগম (৪), তিন মাস বয়সী ছেলে তাহমিদ হোসেন, ননদ হাবিবুন নেছা (৩৮) ও একই গ্রামের সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক হোসেন আহমদ (৩৫)। এ ঘটনায় আহত হয়ে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নিহত সাবিয়ার দেবর জাকারিয়া আহমদ (৪২) ও তাঁর স্ত্রী হাসিনা বেগম (৩০)। পুলিশ ও নিহত ব্যক্তিদের পরিবারসূত্র জানায়, যাত্রীবাহী একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশা সকাল সাড়ে ছয়টার দিকে মহাসড়কে উঠলে সিলেট থেকে তামাবিলগামী একটি ট্রাক সেটিকে ধাক্কা দেয়। এতে সিএনজিচালিত অটোরিকশার কয়েকজন যাত্রী ছিটকে পড়ে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হন। এ সময় ঘটনাস্থলে চারজন ও হাসপাতালে নেওয়ার পথে একজনের মৃত্যু হয়। আহত জাকারিয়া আহমদ বলেন, আজ সকালে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় করে স্বজনের বাড়িতে যাওয়ার পথে এ দুর্ঘটনা ঘটে। জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর বলেন, মরদেহগুলো সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে অটোরিকশাটি থানায় নেওয়া হয়েছে।