২০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ
৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
১২ই জিলকদ, ১৪৪৫ হিজরি

ইউপি চেয়ারম্যানদের জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় আরো সক্রিয় হতে হবে : ইউএনও ঊর্মি রায়

প্রিয় সিলেট
প্রকাশিত ১৪ মে, মঙ্গলবার, ২০২৪ ০৪:১৮:৫৪
ইউপি চেয়ারম্যানদের জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় আরো সক্রিয় হতে হবে : ইউএনও ঊর্মি রায়

দক্ষিণ সুরমায় উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভা
দক্ষিণ সুরমা প্রতিনিধিঃ সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ঊর্মি রায় জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় আরো তৎপর হতে ইউপি চেয়ারম্যানসহ তৃণমূল পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। জনপ্রতিনিধিদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে তিনি বলেন, জন্ম-মৃত্যু নিবন্ধন প্রক্রিয়া আরো সহজতর করতে প্রয়োজনে প্রশাসনিকভাবে সরকারের উচ্চপর্যায়ে সুপারিশ পাঠানো হবে।  গতকাল (১৩ মে) সোমবার দুপুরে উপজেলা পরিষদ কনফারেন্স হলে আয়োজিত উপজেলা আইন-শৃংখলা কমিটির সভায় তিনি সভাপতির বক্তব্য রাখছিলেন। সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান ও আইরিন রহমান কলি, সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ আলিম উল্লাহ খান, মোল্লারগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান মামুন খান, জালালপুর ইউপি চেয়ারম্যান ওয়েস আহমদ, মোগলাবাজার থানার ওসি মোশাররফ হোসেন, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা প্রেসক্লাব, সিলেট’র সভাপতি চঞ্চল মাহমুদ ফুলর, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মহিউদ্দিন আহমদ, দক্ষিণ সুরমা থানার ওসি’র পক্ষে এসআই দীপন চন্দ্র সরকার, উপজেলা আনসার-ভিডিপি ইনস্টাক্টর আব্দুল বাছিত, উপজেলা ইসলামী ফাউন্ডেশনের ফিল্ড সুপারভাইজার মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন, উপজেলা প্রকল্প সমন্বয়কারী মোছাঃ মরিয়ম সুলতানা, সাংবাদিক আশরাফুল ইসলাম এমরান, উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা এবং লতিফা-শফি চৌধুরী মহিলা ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ।   সভায় গত ৮ মে ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত দক্ষিণ সুরমা উপজেলা পরিষদের নির্বাচন সুষ্ঠু, সুন্দর ও সুশৃংখলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করা হয়।   সভায় গ্রাম আদালতকে আরো গতিশীল করার ব্যাপারে আলোচনা উত্থাপিত হলে ইউপি চেয়ারম্যানবৃন্দ অপ্রতুল লোকবলের বিষয়টি তুলে ধরেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে ইউএনও উপজেলা প্রশাসন থেকে প্রয়োজনীয় লোকবলের ব্যবস্থা করে দেয়ার আশ্বাস দেন। তিনি বলেন, ইদানিং দেখা যাচ্ছে ছোটখাটো বিরোধ নিয়েও সংশ্লিষ্টরা জেলা জজ আদালতের শরণাপন্ন হচ্ছেন। অথচ এসব বিরোধ ইউনিয়নপর্যায়ে গ্রাম আদালতের মাধ্যমেই নিস্পত্তি করা সম্ভব। তিনি এ ব্যাপারে তৃণমূল পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিদের আরো সক্রিয় ভূমিকা পালনের আহবান জানান।  সভায় বক্তারা নাম্বার প্লেইটবিহীন সিএনজিচালিত অবৈধ অটোরিক্সার বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের আহবান জানিয়ে বলেন, সিএনজিচালিত অবৈধ অটোরিক্সার বেপরোয়া দাপটে উপজেলার জনগণ নিরাপত্তাহীন। নাম্বার প্লেইটধারী যানবাহন কোন দূর্ঘটনা ঘটালে তাদেরকে খোঁজে পাওয়া সম্ভব। কিন্তু নাম্বার প্লেইটবিহীন অবৈধ অটোরিক্সার ক্ষেত্রে তা কোনভাবেই সম্ভব নয়।   এর পরিপ্রেক্ষিতে উপজেলা প্রশাসন শিগগির-ই নাম্বার প্লেইটবিহীন সিএনজিচালিত অবৈধ অটোরিক্সার বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা আশ্বাস দেন।  পরে উপজেলা পর্যায়ে ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ আইন অবহিতকরণ ও বাস্তবায়ন বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।  প্রেস বিজ্ঞপ্তি